fbpx
Ad imageAd image

মৃত্যুর পর সম্পত্তির ভাগ নিয়ে জানালেন ধনকুবের বাফেট

কিশোরগঞ্জ পোস্ট
কিশোরগঞ্জ পোস্ট

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ধনী ও বিনিয়োগকারী ওয়ারেন বাফেট তাঁর মৃত্যুর পর ধনসম্পত্তির ভাগ-বাঁটোয়ারা কীভাবে হবে, তা প্রকাশ করেছেন। এ ব্যাপারে তিনি তাঁর আগের সিদ্ধান্ত পাল্টে নতুন সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন।

৯৩ বছর বয়সী বাফেট যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান বার্কশায়ার হাথাওয়ের চেয়ারম্যান। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বাফেট বলেছেন, তিনি তাঁর উইল নিয়ে নতুন করে কাজ করেছেন। এই ধনকুবের চাইছেন না তাঁর মৃত্যুর পরও বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন অনুদান পেতে থাকুক। নতুন একটি দাতব্য সংস্থা তাঁর সম্পত্তি পাবে। সংস্থাটি তদারকি করেন বাফেটের তিন সন্তান।

- Advertisement -

বাফেট বলেন, ‘আমার মৃত্যুর পর গেটস ফাউন্ডেশনের কাছে আর কোনো অনুদান যাবে না।’

কয়েকবারই উইলে পরিবর্তন এনেছেন বলে উল্লেখ করেন বাফেট। তিনি বলেন, সন্তানদের মূল্যবোধ এবং কীভাবে তাঁরা সম্পদের বণ্টন করবে, সে ব্যাপারে তাঁর আস্থা আছে। আর এ কারণেই তিনি নতুন করে উইলে পরিবর্তন এনেছেন। বাফেটের প্রত্যেক সন্তানেরই নিজস্ব জনহিতকর সংস্থা আছে।

তিনি বলেন, ‘আমার তিন সন্তানের মূল্যবোধগুলো আমার কাছে খুব, খুব ভালো বলে মনে হয়। কীভাবে কী করবে, তা নিয়ে তাঁদের ওপর শতভাগ আস্থা আছে।’

- Advertisement -

এর আগে বাফেট তাঁর উইলে উল্লেখ করেছিলেন, তাঁর সম্পত্তির ৯৯ শতাংশের বেশি অংশই বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন এবং নিজের পরিবারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট চারটি দাতব্য সংস্থার জনকল্যাণমূলক কাজে ব্যবহারের জন্য বরাদ্দ থাকবে। ওই চারটি দাতব্য সংস্থা হলো: সুসান থম্পসন বাফেট ফাউন্ডেশন, শেরউড ফাউন্ডেশন, হাওয়ার্ড জি বাফেট ফাউন্ডেশন ও নোভো ফাউন্ডেশন।

- Advertisement -

অবশ্য মৃত্যুর আগপর্যন্ত বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনকে অনুদান জুগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন বাফেট।

Subscribe

Subscribe to our newsletter to get our newest articles instantly!

ফলো করুন

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের সাথে থাকুন
জনপ্রিয় খবর
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *