fbpx
Ad imageAd image

কিশোরগঞ্জে রক্তদান শিবির, মহতী উদ্যোগে সামিল কিশোরগঞ্জ ব্লাড ফাউন্ডেশন 

কিশোরগঞ্জ পোস্ট
কিশোরগঞ্জ পোস্ট
কিশোরগঞ্জে রক্তদান শিবির মহতী উদ্যোগে সামিল কিশোরগঞ্জ ব্লাড ফাউন্ডেশন

একজন মানুষের রক্তের প্রয়োজন হলে তাকে অবশ্যই অন্য একজন মানুষের উপর নির্ভর করতে হবে এবং তার বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন অপর একজন মানুষের রক্ত। 

অতএব,  একজন মানুষকে সুস্থ করে তোলা কিংবা তার বেঁচে থাকার জন্য রক্তদান প্রয়োজন।

তাই রক্তের অভাব দূর করা এবং রক্ত দানে উদ্ভুদ্ধ করার লক্ষ্যে কিশোরগঞ্জ এর নগুয়া এলাকার মোহাম্মদ আসাদুল হাসান স্বেচ্ছায় মুমূর্ষু রোগীদের নিয়মিত রক্ত দান করে এবং রক্ত সংগ্রহ করে দিয়ে মানবতার সেবায় এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। ২০১৭ সালে একই শহরের আরো বেশ কয়েকজন রক্তযোদ্ধা নিয়ে গড়ে তুলেছেন কিশোরগঞ্জ ব্লাড ফাউন্ডেশন। কিশোরগঞ্জ ব্লাড ফাউন্ডেশন নামে একটি ফেসবুক গ্রুপ রয়েছে তাদের। যেখানে সদস্য সংখ্যা  ৩৫ হাজার।

জরুরি প্রয়োজনে অসুস্থ ব্যক্তির রক্তের প্রয়োজন পড়লে, গ্রুপে পোস্ট দিলেই তিনি সহ গ্রুপের বাকি সদস্য রা রক্ত সংগ্রহ করে দেয়ার চেষ্টা করেন।
রক্ত দানে আগ্রহী করার জন্য তিনি  ব্যাক্তিগত ভাবে রক্তদাতাকে উপহার হিসেবে প্যাড ও কলম দিয়ে থাকেন।  

- Advertisement -

তিনি নিজেও এ পর্যন্ত ৭৭ ব্যাগ রক্ত দিয়ে মুমূর্ষু রোগীকে বাঁচিয়ে তোলার কাজে এগিয়ে এসেছেন।

ব্যাক্তিগত জীবনে তিনি ২ পুত্রের পিতা। তার বর্তমান বয়স ৫১বছর। ওনার স্ত্রী  সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা। শহরের গুরুদয়াল সরকারি কলেজ থেকে তিনি অনার্স-ডিগ্রি শেষ করেন। তিনি ১৯৯২ সালে কলেজে থাকাকালীন সময়ে ছাত্র সংসদ এর ক্রীড়া সম্পাদক ছিলেন।তারপর  ঢাকার হাবিবুল্লাহ বাহার কলেজ থেকে বি কম কমপ্লিট করে, কিশোরগঞ্জ এসে  “সোনালী বুক হাউজ” নামে একটি বই বিক্রির বিজনেস শুরু করেন।

মোহাম্মদ আসাদুল হাসান কিশোরগঞ্জ পোস্ট কে বলেন, “আমি সহ যারা প্রকৃত স্বেচ্ছাসেবী আছি। তারা আল্লাহর সন্তুষ্টি ও নিজের মনের তৃপ্তির জন্য কাজ করি। ছেলেরা যখন ছোট ছিলো তাদের রক্তদানে উৎসাহিত করার জন্য বেশ কয়েকবার ব্লাড ডোনেট করছি এবং বড় ছেলেকে ৩ বার ব্লাড ডোনেট করিয়েছি। বর্তমান নেশা হচ্ছে নিজে রক্ত দান করা ও অসহায় মানুষদের রক্ত ম্যানেজ করে দেওয়া যতোটুকু সম্ভব হয়।

রক্ত নিয়ে কাজ করি, তাই আমার বাসার নামও দিয়েছি রক্তকমল।”

Subscribe

Subscribe to our newsletter to get our newest articles instantly!

ফলো করুন

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের সাথে থাকুন
জনপ্রিয় খবর
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *