fbpx
Ad imageAd image

কিশোরগঞ্জে প্রেম চুক্তি নিয়ে প্রেমিকের বাসার সামনে অবস্থান নিয়েছে প্রেমিকা

কিশোরগঞ্জ পোস্ট
কিশোরগঞ্জ পোস্ট
কিশোরগঞ্জে প্রেম চুক্তি নিয়ে প্রেমিকের বাসার সামনে অনশন প্রেমিকার

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) কিশোরগঞ্জে পৌরসভায় তারাপাশা বয়লায় এলাকায় প্রেমিক আশিকুর রহমান শুভ’র বাসার সামনে এক সপ্তাহ যাবৎ অবস্থান করছেন প্রেমিকা মাহী।

প্রেমিক আশিকুর রহমান শুভ, (পিতা: রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া, সাং: করগাঁও, থানা: কটিয়াদী) কিশোরগঞ্জে তারাপাশা বয়লায় এলাকায় বাস করেন। আর ভুক্তভোগী প্রেমিকা মাহদীয়া জান্নাত মাহী (পিতা: মো. সিদ্দিকুর রহমান, সাং: গড়িয়াল, থানা: আশুগঞ্জ) বি-বাড়িয়া জেলায় বাস করেন।

তাদের মাঝে হওয়া প্রেম চুক্তির ভাষ্যমতে, “পরম করুনাময় আল্লাহ তা’লার নাম স্মরণ করিয়া অত্র চুক্তিপত্রের বয়ান শুরু করিলাম। আমরা উভয়েই প্রাপ্ত বয়স্ক ও বয়স্কা। আমাদের মধ্যে মার্চ ২০২৩ ইংরেজী তারিখ হইতে ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয়। অত্র পরিচয় এর মাধ্যমে উভয় পক্ষের মধ্যে গভীর সম্পর্কের সৃষ্টি হয় এক পর্যায়ে আমরা একে অপরের সহিত বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার সিদ্ধান্তে উপনিত হই। আমি ১ম পক্ষ পেশার একজন মাদ্রাসা পড়ুয়া ছাত্রী এবং আমি ২য় পক্ষ একজন অনার্স পড়ুয়া ছাত্র। উভয় পক্ষের পড়াশুনা চলমান থাকার কারনে এই মুহুর্তে আমরা একে অপরের সহিত বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হচ্ছি না। কিন্তু আমাদের মাঝে বর্তমানে যে সম্পর্ক চলমান আছে তা ভবিষ্যতেও চলমান থাকিবে। উপরে উল্লেখিত শর্ত সাপেক্ষে আগামি ৫(পাঁচ) বছর পর উভয়পক্ষদ্বয় ইসলামিক শরীয়ত মোতাবেক বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হইবেন।”

প্রেম চুক্তি পত্র

ভুক্তভোগী মাহী দাবি করে কিশোরগঞ্জ পোস্ট কে জানান, শুভর আত্মীয়-স্বজন বিভিন্ন সময় তাকে সমাধানের আশ্বাস দিলেও এখন পর্যন্ত কোন অগ্রগতি নেই, উল্টো তাকে বিভিন্নভাবে প্রলোভন দেয়া হচ্ছে। ভুক্তভোগীকে নানা ধরনের ভয়-ভীতিও দেখানো হচ্ছে।

- Advertisement -

যার জন্য তিনি গত সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) কিশোরগঞ্জে সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

ভুক্তভোগী মাহী কিশোরগঞ্জ পোস্ট কে আরও জানান, তিনি গত এক সপ্তাহ যাবৎ প্রেমিকের এলাকায় অবস্থান করছেন। তিনি শুভ ও তার পরিবারের উদ্দেশ্যে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তাকে কোটি টাকা দিলেও তিনি তার অবস্থান থেকে একচুল পরিমাণও নড়বেন না।

প্রেমিক আশিকুর রহমান শুভ

কিশোরগঞ্জে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে কিশোরগঞ্জ পোস্ট কে জানান, যে সংশ্লিষ্ট থানায় বা যে এলাকায় ভুক্তভোগীর সাথে এই ঘটনা ঘটেছে ওই থানায় অভিযোগ করে একটি কপি নিয়ে কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় জমা দিলে, আমরা আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

এই বিষয়টি নিয়ে কিশোরগঞ্জে পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সাইফুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কিশোরগঞ্জ পোস্ট কে জানান, বিষয়টি আমি শুনেছি। জনপ্রতিনিধি হিসাবে দুই পক্ষসহ এলাকার লোকজন নিয়ে শীঘ্রই বসে এই বিষয়ের একটি সঠিক সমাধান বের করে দেয়ার চেষ্টা করবো।

কিশোরগঞ্জ পোস্ট এই বিষয়ে শুভ ও তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে, তারা কেউ বাসা থেকে বের হয় নি।

- Advertisement -

Subscribe

Subscribe to our newsletter to get our newest articles instantly!

ফলো করুন

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের সাথে থাকুন
জনপ্রিয় খবর
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *