fbpx
Ad imageAd image

কিশোরগঞ্জে আ.লীগ মনোনীত ৬ নৌকার মাঝি

রবিবার (২৬ নভেম্বর) সকাল ১০টায় দলীয় ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় সব মনোনয়নপ্রত্যাশীর সঙ্গে মতবিনিময় করেন দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

কিশোরগঞ্জ পোস্ট
কিশোরগঞ্জ পোস্ট
কিশোরগঞ্জে আলীগ মনোনীত ৬ নৌকার মাঝি

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য তিন হাজার ৩৬২টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। এর মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৭০টি আসনের বিপরীতে মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছিল ৭৩০টি।

আজ রবিবার (২৬ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে ৪টায় মনোনয়নপ্রাপ্তদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

রবিবার (২৬ নভেম্বর) সকাল ১০টায় দলীয় ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় সব মনোনয়নপ্রত্যাশীর সঙ্গে মতবিনিময় করেন দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

ঢাকা বিভাগের ৭০টি আসনে বিভিন্ন সমীকরণ মিলিয়ে প্রার্থিতা নিশ্চিতকরণের মাঝে নতুন যাদের নাম এসেছে তারা অনেকেই আওয়ামী লীগের নতুন চমক।

- Advertisement -

কিশোরগঞ্জ

কিশোরগঞ্জের ছয়টি আসনে নৌকার মাঝি হতে ৫৩ জন মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। জেলার ১৩টি উপজেলা নিয়ে ছয়টি সংসদীয় আসন গঠিত। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ-৩ ও ২ আসনে সবচেয়ে বেশি নৌকার মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ-১ (সদর-হোসেনপুর) 

এই আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি। আ.লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের মেয়ে এবং সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ছোট বোন ডা: সৈয়দা জাকিয়া লিপি নূর কে  আবারোও নৌকার মাঝি হিসেবে মনোনীত করেন।

কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদি-পাকুন্দিয়া) 

- Advertisement -

এই আসনে মনোনয়ন দৌড়ে অনেকের কথা শোনা গেলেও আ.লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা নৌকার মাঝি হিসেবে মনোনীত করেন আব্দুল কাহার আকন্দ কে। আলোচিত পুলিশ কর্মকর্তা ছিলেন আব্দুল কাহার আকন্দ। 

আব্দুল কাহার আকন্দ বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন। এছাড়া তিনি ২০০৪ সালের ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা ও পিলখানা হত্যা মামলারও তদন্ত কর্মকর্তা ছিলেন। তিনি পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি হিসেবে চাকরি শেষ করে ২০১৯ সালে অবসরে যান। এরপর থেকে তিনি কিশোরগঞ্জে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় হন।

কিশোরগঞ্জ-৩ (করিমগঞ্জ-তাড়াইল) 

- Advertisement -

এই আসন আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হলেও জাতীয় পার্টির সঙ্গে আসন সমঝোতায় বার বার ছেড়ে দিতে হয়েছে। বিগত তিনটি নির্বাচনে এ আসনে জাতীয় পার্টির মহাসচিব অ্যাডভোকেট মুজিবুল হক চুন্নু থাকায় আওয়ামী লীগ থেকে কাউকে মনোনয়ন দেয়নি। কিন্তু জাতীয় পার্টি আলাদাভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নেয়। তাই আ.লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা নৌকার মাঝি হিসেবে মনোনীত করেন করিমগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদ কে।

কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) 

এই আসনে আ.লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা নৌকার মাঝি হিসেবে মনোনীত করেন বর্তমান সংসদ সদস্য সাবেক রাষ্ট্রপতিপুত্র রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক কে।

কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) 

এই আসনে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে ছিলেন টানা তিনবারের সংসদ সদস্য ও বাজিতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফজাল হোসেন। আর তাকেই আ.লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা নৌকার মাঝি হিসেবে আবারোও মনোনীত করেন।

কিশোরগঞ্জ-৬ (ভৈরব-কুলিয়ারচর) 

এই আসনে একাই আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র নিয়েছেন নাজমুল হাসান পাপন। আ.লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা নৌকার মাঝি হিসেবে প্রয়াত রাষ্ট্রপতিপুত্র নাজমুল হাসান পাপন কে মনোনীত করেন।

Subscribe

Subscribe to our newsletter to get our newest articles instantly!

ফলো করুন

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের সাথে থাকুন
জনপ্রিয় খবর
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *