fbpx
Ad imageAd image

কত স্বাধের স্বাধীনতা

১৯৭১ সালের ২৬ শে মার্চ পূর্ব পাকিস্তানের আকাশে যে রক্তিম সূর্য উদিত হয়েছিল সেই সূর্য আমাদের নির্দেশ দিয়েছিল পূর্ব পাকিস্তান না এখন সময় বাংলাদেশের,

বিবেকানন্দ রায়
বিবেকানন্দ রায়

স্বাধীনতার পূর্বে আমাদের জাতিগোষ্ঠীর ইতিহাস ছিল নির্যাতন,নিপীড়ন সহ্যের ইতিহাস।

১৯৭১ সালের ২৬ শে মার্চ পূর্ব পাকিস্তানের আকাশে যে রক্তিম সূর্য উদিত হয়েছিল সেই সূর্য আমাদের নির্দেশ দিয়েছিল পূর্ব পাকিস্তান না এখন সময় বাংলাদেশের, এখন সময় লড়াই করার, এখন সময় বাঁধ ভেঙ্গে দিয়ে ভূখন্ডের মালিকানা প্রতিষ্ঠিত করার। আমরা বাঙ্গালিরা যতবার ক্ষমতায় আসীন হয়েছি ততোবারই তৃতীয় পক্ষ এবং নিজেদের বেঈমানীতে আমরা দাসত্ব বরণ করেছি। আমাদের ভূমি ব্যবহার করে মুনাফা নিয়েছে কখনো পর্তুগিজ,কখনো ইংরেজরা। বাঙ্গালিরা ঠকতে ঠকতে শিখেছে, নির্যাতিত হতে হতে একসময় বাঙ্গালি জাতি বুঝতে শিখেছে নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার কোন বিকল্প নেই।সেই স্বাধীনতার পথ ধরতে আমাদের সময় লেগেছে ১৯৭১ বছর। ১৯৭১ বছরের পরাধীনতার শিকল ভাঙ্গতে যে ত্যাগ করতে হয়েছে সেই ত্যাগ পৃথিবীর কোন দেশ করেনি। ১৯৭১ সালের ১৭ ই ডিসেম্বর “লন্ডন টাইমস” পত্রিকার একটি কলামে বলা হয়েছিল “রক্ত যদি স্বাধীনতার মূল্য হয় তবে বাংলাদেশ সেটি চড়া দামে কিনেছে”। পৃথিবীর ইতিহাসে স্বাধীনতার জন্য কোন জাতি এত রক্ত বিসর্জন দেয়নি।নিরীহ-নিরস্ত্র বাঙ্গালি স্বাধীনতা পেতে ১,৪৭,৫৭০ বর্গকিলোমিটারের প্রতি ইঞ্চির বিপরীতে রক্ত ঢেলেছে।১৯৭১ সালে বিশ্বব্যাপী বাঙ্গালিরা লড়াকু জাতি হিসাবে স্বীকৃতি পেয়ছিল। শূণ্য হাতে, দৃঢ় মনোবল নিয়ে কিভাবে লড়াই করতে হয় সেটি দেখিয়েছে বাঙ্গালিরা।দামাল ছেলেরা জীবনের মায়া ত্যাগ করে জীবনকে তুচ্ছ করে বন্দুকের ট্রিগার চেপেছে,ঘরের বধূ রান্না করে মুক্তিযোদ্ধাদের অন্ন জোগানের ব্যবস্থা করে দিয়েছে, ছোট্ট শিশুটি মুক্তিযোদ্ধাদের সেবা করে সহযোগিতা করে লড়াই করেছে, গায়কের দল গান গেয়ে উজ্জীবিত করেছে, চিকিৎসক-সেবিকা আহত মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করে তুলেছে,ফুটবল খেলোয়াড়েরা জায়গায় জায়গায় ঘুরে ফুটবল খেলে তহবিল সংগ্রহ করেছে, সেনা,নৌ,বিমানে কর্মরত লোকজন ক্যাম্প ছেড়ে পালিয়ে এসে যুদ্ধে যোগ দিয়েছে, বৃদ্ধ মা মুক্তিযোদ্ধাদের বাঁচাতে নিজের সন্তানকে পাকবাহিনীর হাতে তুলে দিয়েছে!!!কি ত্যাগ করতে হয়নি আমাদের!!!৩০ লক্ষ মানুষ জীবন দিয়েছে, ৩লক্ষ মা-বোন তাদের সম্ভ্রম হারিয়েছে। সবকিছু উজাড় করে দিয়ে বাঙ্গালি জাতি স্বাধীন হয়েছে।আজ স্বাধীনতার ৫৩ বছর পূর্ণ হয়েছে। বাঙ্গালি আজ সৃষ্টি সুখের উল্লাসে কেঁপে বিশ্ব মানচিত্রে নিজেদের প্রতিষ্ঠা করেছে।চিরযৌবনা থাকুক আমাদের সাধের “স্বাধীনতা”।মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্বরণ করছি বাঙ্গলির মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে, গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি বাঙ্গালির সকল স্বাধীকার আন্দোলনে অকাতরে জীবন বিলিয়ে দেওয়া সকল শহিদদের, গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে নেতৃত্বদানকারী অস্থায়ী মুজিবনগর সরকারের সকল সদস্যদের।

বিবেকানন্দ রায়,

সাবেক দপ্তর বিষয়ক উপ-সম্পাদক,বাংলাদেশ ছাত্রলীগ,কিশোরগঞ্জ জেলা শাখা।

Subscribe

Subscribe to our newsletter to get our newest articles instantly!

ফলো করুন

সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাদের সাথে থাকুন
জনপ্রিয় খবর
মতামত দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *